June 15, 2024, 10:25 pm

চলচ্চিত্রের ফেরিওয়ালা তারেক মাসুদকে হারানোর ১১ বছর আজ

সাংবাদিকঃ
  • খবর প্রকাশিত সময়ঃ Saturday, August 13, 2022
  • 13 পড়েছেন:

তার হাত ধরেই এদেশের সিনেমা দেশে বিদেশে পেয়েছে সম্মান ও মর্যাদা। তিনি একজন স্বাধীন চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক, চিত্রনাট্যকার, লেখক এবং গীতিকার। তিনি সিনেমার ফেরিওয়ালা তারেক মাসুদ। আজ অকাল প্রয়াত এই চলচ্চিত্রের ফেরিওয়ালার মৃত্যুবার্ষিকী। দেখতে দেখতে ১১ বছর হয়ে গেল তাকে হারানোর। সিনেমা দিয়ে মানুষের মধ্যে আলো ছড়ানো দায়িত্ব পালন করেছেন আমিত্ব। বাংলা চলচ্চিত্রের এই উজ্জ্বল অধ্যায় শুরু হয়েছিল ১৯৫৬ সালের ৬ই ডিসেম্বর পূর্ব পাকিস্তানের ফরিদপুরে। অসম্ভব গুণী ও সৃজনশীল এই মানুষটির প্রয়াত হয় খুবই করুণভাবে। দেশের সড়ক ব্যবস্থার বলি হয়ে প্রাণ হারান তিনি। একই দিনে তার সাথে দুর্ঘটনার শিকার হন তার দীর্ঘদিনের সহকর্মী অন্যতম সাংবাদিক, চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীর। ২০০২ সালে তার প্রথম পূর্ণ দীর্ঘ চলচ্চিত্র মাটির ময়না মুক্তি পায়।

ছবিটি তার শৈশবের মাদ্রাসার জীবনের অভিজ্ঞতা নিয়ে নির্মিত। এটি বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র অনুষ্ঠানের প্রদর্শিত হয় এবং দেশী বিদেশী বিশেষ প্রশংসা অর্জন করে। চলচ্চিত্রটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। এবং একটি দেশের গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের সংগ্রামের হৃদয়স্পর্শী স্বচ্ছ উপস্থাপনার জন্য তারেক মাসুদকে ডিরেক্টরস ফোর্টনাইট পান। এই ছবির জন্য তিনি ২৭ তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ নাট্যকার হিসেবে পুরস্কার লাভ করে। পরবর্তীতে আরও দুইটি সিনেমা মুক্তি পায়। তারিখ মাসুদের শেষ অসম্পূর্ণ কাজ কাগজের ফুল।

ছবিটি ভারত বিভাগের গল্প নিয়ে। এটি কে মাটির ময়নার পরবর্তী পর্ব হিসেবে নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন তিনি সেই স্বপ্ন পূরণ করতে পারেননি তিনি। সরকার দানব কেড়ে নিল তার প্রাণ। তারেক মাসুদ রয়ে গেছেন কালজয়ী সিনেমাওয়ালা হিসেবে। নিজ নিজ ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বর ূপ ২০১২ সালে মাসুদ ও মিশুক মনির কে একুশে পদক ভূষিত করেন সরকার।

খবরটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য খবর এই ক্যাটাগরিরঃ